কাসার কেজি কত টাকা । পুরাতন কাসার দাম

কাসার কেজি কত টাকা । পুরাতন কাসার দাম ২০২৪

Last Updated:4 months ago

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা কাসা কত টাকা কেজি এই সম্পর্কে আলোচনা করবো। কাসা অনেক পুড়োনো একটি ধাতু। যা মানুষ দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার করে আসছে। বাংলাদেশ এবং ভারতে বিভিন্ন ধরনের অলংকারাদি এবং গৃহস্থালির উপকরণ তৈরীতে কাঁসা এবং পিতল ব্যবহার করা হয়ে থাকে । এই দুই ধরনের ধাতুর তৈরী ব্যবহার্য জিনিস-পত্র দ্বারা পারিবারিক ঐতিহ্য (বনেদী-ভাবধারা) প্রকাশ পেয়ে থাকে। তবে বর্তমানে কাঁসা শিল্পটি ঐতিহ্যে থেকে হারিয়ে যাওয়ার পথে। বাজারে নানা রকম পন্যের চাহিদার জন্য হারিয়ে যাচ্ছে এই কাঁসা শিল্পটি। অনেকেই জানতে চায় কাসা কত টাকা কেজি। চলুন জেনে নেই কাসার কেজি কত টাকা।

কাসার কেজি কত টাকা

বর্তমানে কাসার চাহিদা অনেকেইটাই কমে গেছে। বাজারে অনেক আধুনিক পণ্যের চাহিদার জন্য কাসার চাহিদা অনেকটাই কমে গেছে। কিন্তু এখনো অনেক মানুষ এই ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য কাসা ব্যবহার করে থাকে। তাই অনেকেই কাসার দাম জানতে চায়।

বর্তমান বাজারে কাসার তৈরি বিভিন্ন তৈজসপত্রের প্রতি কেজির দাম ২০০০ থেকে ২৪০০ টাকা। তবে বর্তমানে কাসার চাহিদা কম থাকলেও প্রতি কেজি কাসার তৈজসপত্রের দাম বেড়েছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা। তবে এর দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে।


পুরাতন কাসা কত টাকা কেজি

পুরাতন কাসা। বর্তমানে অনেকেই এই পুরাতন কাসা ব্যবহার করে থাকে। আমাদের বাংলাদেশসহ ভারতবর্ষেও এই কাসা ব্যবহৃত হয়ে থাকে। পুরাতন কাসা দিয়েও অনেক ধরনের তৈজসবাপত্র বানানো হয়। তাই অন্যান্য কাসার থেকে এই পুরাতন কাসার চাহিদা কম নয়। অনেকেই জানতে চায় পুরাতন কাসার দাম কত। চলুন জেনে নেই পুরাতন কাসা কত টাকা কেজি।

নতুন কাসার দামের তুলনায় পুরাতন কাসার দাম কিছুটা কম। বর্তমানে প্রতি কেজি পুরাতন কাসার তৈজসবাপত্রের দাম ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা। এছাড়া কাসার তৈরি তৈজসবাপত্রের একেক জিনিসের দাম একেক রকম হয়ে থাকে। তবে বর্তমানে পুরাতন কাসার দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে।

 

কাসার প্লেট এর দাম কত

বর্তমানে অনেকেই কাসার প্লেটে খাবার খেয়ে থাকে। কাসার প্লেটে খাওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে। কাঁসার পাত্রে রাখা খাবার খেলে পাকস্থলীতে থাকা বেশ কিছু ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হয় বলে জানাচ্ছে গবেষণা। আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটি বলছে, কাঁসার পাত্রে খাবার খেলে হার্ট অ্যাটাক, কোলেস্টরল এবং উচ্চ রক্তচাপের মতো রোগের ঝুঁকি কমে।  শরীরে তামার ঘাটতি দূর করতে সাহায্য করে কাঁসা। ফলে মস্তিষ্কে থাকা নিউরনের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায় ও স্মৃতিশক্তির বাড়ে। এছাড়াও আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে। অনেকেই জানতে চায় কাসার প্লেটের দাম কত। নিচে কাসার প্লেটের দাম দেওয়া হলো।

বর্তমানে বাংলাদেশি কাসার প্লেটের দাম ১৫০০ থেকে ৩০০০ টাকার উপরে। তবে বাংলাদেশি কাসার প্লেটের দাম একেক সাইজের দাম একেক রকম হয়ে থাকে। এছাড়া বর্তমানে বিভিন্ন সাইজের ইন্ডিয়ান কাসার প্লেট পাওয়া যায়। বর্তমানে ১০’’ সাইজের ইন্ডিয়ান কাসার প্লেটের দাম ১৩০০ থেকে ১৩৫০ টাকা।এবং ১১’’ সাইজের ইন্ডিয়ান কাসার প্লেটের দাম ১৪০০ থেকে ১৪৫০ টাকা। তবে এর দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে।

 

কাসার থালার দাম কত

কাসার থালা। প্রায় সকলের কাছে কাসার থালা অনেক পরিচিত একটি বাসন। অনেকেই কাসার থালা ব্যবহার করতে অনেক পছন্দ করে। তাছাড়া কাসার থালায় খাবার খাওয়ার উপকারিতা রয়েছে। খাওয়ার জন্য কাঁসার বাসন অন্যতম সেরা বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। কাঁসার বাসনে রান্না করলে খাবারে আম্লিকভাব কমে যায়৷ পাশাপাশি, এই বাসনে রান্না করা খাবার হজমেও সহায়তা করে৷ থাইরয়েড ব্যালান্স করতে সাহায্য করে। ইনফ্লেম্যাশন কমিয়ে স্মৃতিশক্তি উন্নত করে। এছাড়াও কাসার থালায় খাবার খাওয়ার আরো অনেক উপকারিতা থাকতে পারে। অনেকেই জানতে চায় কাসার থালার দাম কত। চলুন জেনে নেই কাসার থালার দাম।

সাধারণত কাসার থালা কেজি ধরে বিক্রি হয়ে থাকে। বর্তমান বাজারে প্রতি কেজি কাসার থালার দাম ২০০০ থেকে ২২০০ টাকা। এছাড়া বড় সাইজের ২ থেকে ৩ কেজি ওজনের একটি কাসার প্লেটের দাম ৪০০০ থেকে ৬৫০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। তবে এর দাম স্থানভেদে কম বেশি হতে পারে।


কাসা ও পিতল চেনার উপায়

যুগ যুগ ধরে মানুষ কাসা এবং পিতলের তৈরি জিনিসপত্র ব্যাবহার করে আসছে। কাঁসা হচ্ছে রাং/টিন (Tin) এবং তামা (Copper) এর সংমিশ্রণে তৈরী একটি মিশ্র ধাতু, অনেকেই ধারণা করে থাকেন যে, কাঁসা আর পিতল হচ্ছে একই জিনিস (মিশ্র ধাতু), কিন্তু পিতল হচ্ছে দস্তা (Zinc) ২০% এবং তামা (Copper)৮০% এর সংমিশ্রণে তৈরী একটি মিশ্র ধাতু । কাজেই, কাঁসা আর পিতল একই জিনিস (মিশ্র ধাতু) নহে। অনেকেই জানতে চায় কাসা এবং পিতল চেনার উপায় কি। চলুন জেনে নেই কাসা পিতল চেনার উপায়।

কাঁসা(Bronze)ঃ কাঁসা হচ্ছে রাং/টিন (Tin) এবং তামা (Copper) এর সংমিশ্রণে তৈরী একটি সংকর ধাতু। কাঁসা মূলত কাস্টমাইজ করা সহজ না বলেই সম্পূর্ণ গরম অবস্থায় একটা সাধারণ গোলাকার চাতকি থেকে চার পাঁচজন পিটিয়ে পিটিয়ে থালা, গ্লাস, বাটি এবং স্কুল ও মন্দিরের ঘন্টার আকৃতি দিতে সক্ষম হোন। কাঁসার গ্লাসের আকৃতি দেয়া খুবই কস্টসাধ্য। এসব জিনিস ব্যাতীত কাঁসার আর কিছুই হয়না।

পিতল(Brass) ঃ পিতল হচ্ছে দস্তা (Zinc) এবং তামা (Copper) এর সংমিশ্রণে তৈরী একটি মিশ্র ধাতু। পিতল কাস্টমাইজ করা সহজ। তাই যেকোনো ব্যবহার্য জিনিস এবং গৃহসজ্জার জিনিস সবই পিতল দিয়ে তৈরী লরা যায়। 

কাঁসা পিতলের আসল নকলঃ

কাঁসা পিতলের আসল নকল বলতে আসলে কিছু নাই। কাঁসা মানে কাঁসাই আর পিতল মানে পিতলই। তবে কাঁসা পিতলের রং প্রায় কাছাকাছি হওয়ায় অনেকেই পিতলকে কাঁসা বলে ভুল করেন।

কাঁসা- পিতল চেনার উপায়ঃ

কাঁসাঃ কাঁসা কালচে সোনালি বর্ণের। কাঁসায় শব্দ করলে শব্দের প্রতিধ্বনি হয়। কাঁসার পন্য তৈরি এবং কারিগরের খরচ বেশি হওয়ায় এর দামও বেশি।

পিতলঃ পিতল উজ্জল সোনালি বর্ণের। পিতলে শব্দ করলে সরাসরি টুংটাং শব্দ হয়। তাছাড়া দুটো পাশাপাশি রাখলেও সরাসরি পার্থক্য বুঝা যায়। এছাড়াও আরো অনেক উপায়ে কাসা এবং পিতল চেনা যায়। 


পিতল ও কাসার পার্থক্য

প্রায় আমাদের সকলের কাছে কাসা এবং পিতল অনেক পরিচিত একটি ধাতু। অনেকেই কাসা এবং পিতলের তৈরি অনেক তৈজসবাপত্র ব্যবহার করে থাকে। অনেকেই জানে না যে কাসা এবং পিতলের মধ্যে কি পার্থক্য। চলুন জেনে নেই পিতল ও কাসার পার্থক্য।

কাঁসা হলো তামা ও রাং বা টিন -এর সংমিশ্রণ । কাঁসা মূলত কাস্টোমাইজ করা সহজ নয়। তাই একে সম্পূর্ণ গরম অবস্থায় একটা সাধারণ গোলাকার চাতকি থেকে চার পাঁচজন পিটিয়ে পিটিয়ে থালা, গ্লাস, বাটি এবং স্কুল ও মন্দিরের ঘন্টার আকৃতি দিতে সক্ষম হোন। খুবই কস্টসাধ্য কাঁসার গ্লাসের আকৃতি দেয়া। এসব জিনিস ব্যতীত কাঁসার আর কিছুই হয় না।

অন্যদিকে পিতল হলো তামা এবং দস্তার সংমিশ্রণ। পিতল কাস্টোমাইজ করা সহজ। তাই যেকোনো ব্যবহার্য জিনিস এবং গৃহসজ্জার জিনিস সবই পিতল দিয়ে তৈরি করা যায়। কাঁসা পিতলের আসল নকল বলতে কিছু হয়না। কাঁসা মাে কাঁসাই আর পিতল মানে পিতলই।

তবে কাঁসা পিতলের রং কাছাকাছি হওয়ায় অনেকেই পিতলকে কাঁসা বলে ভুল করে থাকেন। কাঁসা কালচে সোনালী এবং কাঁসায় শব্দ করলে শব্দের প্রতিধ্বনি হয়। কাঁসার পন্য তৈরি এবং কারিগরের খরচ বেশি হওয়ায় এর দামও বেশি।

অন্যদিকে পিতল লালচে সোনালী এবং পিতলে সরাসরি টুংটাং শব্দ হয়। কাঁসার তুলনায় পিতলের দামও কম। এছাড়া কাঁসা- পিতল দুটো পাশাপাশি রাখলেও সরাসরি পার্থক্য বুঝা যায়। এছাড়াও আরো অনেক উপায়ে পিতল এবং কাসার পার্থক্য বুঝা যায়।


আশা করি আপনারা আমাদের এই পোস্ট থেকে কাসা কত টাকা কেজি, পুরাতন কাসা কত টাকা কেজি, কাসার প্লেটের দাম, কাসার থালার দাম, পিতল এবং কাসা চেনার উপায় এছাড়াও কাসা সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে পেড়েছেন। আমাদের এই পোস্টে কাসা সম্পর্কে বিস্তারিত দেওয়া আছে। আশা করি আমাদের এই পোস্টি আপনাদের ভালো লেগেছে। পুড়ো পোস্টটি ধৈর্য ধরে সম্পূর্ণ পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

একই ধরনের পোস্ট

×