পুরাতন ব্যাটারি দাম কত

পুরাতন ব্যাটারি দাম কত ২০২৪

Last Updated:2 months ago

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা পুরাতন ব্যাটারির দাম সম্পর্কে আলোচনা করবো। সাধারণত ব্যাটারি অনেক কাজে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বর্তমানে বৈদ্যতিক অনেক ঘাটতির কারণে আমরা প্রায় সকলেই ব্যাটারি ব্যবহার করে থাকি। বর্তমানে এই সময়ে দৈনন্দিন জীবনে ব্যাটারির অনেক চাহিদা রয়েছে। বর্তমানে ব্যাটারি দিয়ে সকল প্রকার বৈদ্যুতিক  চাহিদা পূরণ করা যায়। তবে বর্তমানে পুরাতন ব্যাটারির চাহিদা অনেক। কারণ এইগুলো দামে অনেক কম এবং অনেক কার্যকরী হয়ে থাকে। তাই অনেকেই পুরাতন ব্যাটারির দাম সম্পর্কে জানতে চায়। নিচে পুরাতন ব্যাটারির দাম দেওয়া হলো।

পুরাতন ব্যাটারির দাম কত

বর্তমানে বৈদ্যতিক অনেক সমস্যার কারণে আমরা, ফ্যান, লাইটসহ আরো অনেক বৈদ্যতিক জিনিসপত্র আমরা ব্যাটারি দিয়ে ব্যবহার করে থাকি। তবে এই গুলো চালাতে সাধারণত সবাই পুরাতন ব্যাটারি ব্যবহার করে থাকে। তাই বর্তমানে বাজারে পুরাতন ব্যাটারির চাহিদা অনেক। তাই অনেকের মনে একটা প্রশ্ন থাকে বর্তমানে পুরাতন ব্যাটারির দাম কত? চলুন আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জেনে নেই। 

নতুন ব্যাটারি ক্রয় করার সক্ষমতা অনেকের নাও থাকতে পারে কারণ এসকল ব্যাটারিগুলোর প্রচুর পরিমাণে দাম থাকে কিন্তু আপনি চাইলে খুব সহজেই পুরাতন ব্যাটারি ক্রয় করতে পারেন। বর্তমানে নতুন ব্যাটারি ক্রয় করতে হলে আপনাকে ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে ক্রয় করতে হবে। তবে পুরাতন ব্যাটারি আপনি চাইলে এর থেকে অনেক কম দামে ক্রয় করতে পারবেন। পুরাতন ব্যাটারির দাম সাধারণ ১০০০ থেকে ৫০০০ টাকার মধ্যে হয়ে থাকে। যেহেতু একেক ব্যাটারির ভোল্ট একেক রকম হয়ে থাকে তাই ভোল্ট হিসেবে ব্যাটারির দাম কম বেশি হতে পারে।

 

পুরাতন ব্যাটারি কত টাকা কেজি

বর্তমানে পুরাতন ব্যাটারি অনেকেই ব্যবহার করে থাকে। বাংলাদেশের অনেক জায়গায় পুরাতন ব্যাটারি বিক্রি করা হয়। অনেক পুরাতন ব্যাটারি আছে যেইগুলো অনেকটাই ভালো থাকে তাই সেইগুলো ফ্যান, লাইট এইগুলো চালানোর কাছে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তবে অনেক পুরাতন ব্যাটারি আছে যেই গুলো একেবারে অচল। সেই ব্যাটারি গুলো পুরাতন ভাঙ্গারির দোকানে কেজি দরে বিক্রি করা হয়। অনেকেই জানতে চায় পুরাতন ব্যাটারি কত টাকা কেজি। আজকে আপনারা আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারবেন পুরাতন ব্যাটারি কত টাকা কেজি।

সাধারণত যেই পুরাতন ব্যাটারি গুলো কেজি দরে বিক্রি করা হয় সেই গুলো একেবারে অচল হয়ে থাকে। তাই এই গুলোর দাম অনেক কম হয়ে থাকে। বর্তমানে প্রতি কেজি পুরাতন ব্যাটারির দাম ৩০ থেকে ৪০ কিংবা ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয়। তবে এই গুলো কোনো নির্ধারিত দাম হয় না তাই এর দাম একেক দোকানে একেক রকম হতে পারে।


ল্যাপটপের পুরাতন ব্যাটারির দাম কত

বর্তমানে এই আধুনিক যুগে প্রায় সকলেই লেপটপ ব্যবহার করে থাকে। তবে ল্যাপটপের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হলো ব্যাটারি। ল্যাপটপ ব্যাটারি দীর্ঘ সময় ব্যাকআপ প্রদান করে। সময় বাড়ার সাথে সাথে ব্যাটারির সেল দুর্বল হয়ে যায় তাই সব সময় সর্বোচ্চ ব্যাকআপ রাখার জন্য ব্যাটারি প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন হয়। ল্যাপটপের ব্যাটারি যখন পুরাতন হয়ে যায় তখন অনেকেই এই ব্যাটারি বিক্রি করতে চায় এবং কত দামে বিক্রি করতে পারবে সেইটা জানতে চায়, তাদের মনে এই একটা প্রশ্ন। আবার অনেকেই আছে যারা ল্যাপটপে পুরাতন ব্যাটারি ক্রয় করতে চায় তাদের মনেও এই একই প্রশ্ন। তাহলে চলুন আজকে আমরা জেনে নেই ল্যাপটপের পুরাতন ব্যাটারির দাম কত।

বর্তমানে যারা ল্যাপটপের একেবারে পুরাতন নষ্ট ব্যাটারি বিক্রি করতে চান তারা প্রতি পিচ ৬ সেল ১২৫ থেকে ১৩৫ টাকায় বিক্রি করতে পারবেন। এবং ১১০ সেল প্যাক ৯০ থেকে ৯৫ টাকায় বিক্রি করতে পারবেন। এছাড়া ব্যবহারের যোগ্য এই রকম ল্যাপটপের পুরাতন ব্যাটারি বিক্রি করতে পারেবন ২৫০০ থেকে ৪০০০ টাকার মধ্যে। তবে এর মান হিসেবে এই ব্যাটারির দাম কম বেশি হতে পারে।


পুরাতন অটো গাড়ির ব্যাটারির দাম কত

বাংলাদেশে এবং ভারতে একটি পরিচিত যানবাহনের নাম আটো গাড়ি কিংবা আটো রিক্সা। বাংলাদেশের প্রায় সকল জায়গায় এই গাড়ি দেখা যায়। এই আটো গাড়ি সাধারণত ব্যাটারি চালিত। আটো গাড়ির ব্যাটারি নতুন অবস্থায় দীর্ঘ দিন সার্ভিস দিয়ে থাকে। তবে অনেক পুরাতন ব্যাটারি আছে যেই গুলো অনেক ভালো সার্ভিস দিয়ে থাকে। তাই অনেকেই পুরাতন ব্যাটারি ব্যবহার করতে চায়। কিন্ত অনেকেই জানতে চায় অটো গাড়ির পুরাতন ব্যাটারির দাম কত। চলুন জেনে নেই পুরাতন আটো গাড়ির ব্যাটারির দাম কত।

বর্তমানে অটো গাড়ির একটি পুরাতন ব্যাটারির নাম হচ্ছে Power plus VIP এই পুরাতন ব্যাটারির দাম ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা। এছাড়াও আরো একটি ব্যাটারি হচ্ছে Pilot bettery এই পুরাতন ব্যাটারির দাম হচ্ছে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা। তবে এছাড়াও আরো অনেক ধরণের ব্যাটারি আছে যার দাম এই গুলোর থেকে কম বেশি হতে পারে।


পুরাতন ব্যাটারি কোথায় ক্রয় বিক্রয় করা হয়

অনেকের অনেক সময় পুরাতন ব্যাটারির দরকার হয়ে থাকে। অনেকেই পুরাতন ব্যাটারি ক্রয় করতে চায়। কিন্ত অনেকেই জানে না যে পুরাতন ব্যাটারি কোথায় কিনতে পাওয়া যায়। তাই আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জানিয়ে দিবো পুরাতন ব্যাটারি কোথায় ক্রয় বিক্রয় করা হয়।

এখন প্রায় প্রতিটি এলাকা/মার্কেটে কম্পিউটার, ল্যাপটপ, মোবাইল এবং আটো রিক্সার ব্যাটারি ক্রয় - বিক্রয় ও সার্ভিসিংয়ের দোকান / প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এই দোকানগুলোতে নতুন - পুরাতন ব্যাটারি সহ অন্যান যন্ত্রাংশ পাওয়া যায়। তবে ঢাকার এলিফ্যান্ট রোড কম্পিউটার ও ল্যাপটপ এর পুরাতন ব্যাটারি ক্রয় - বিক্রয় ও সার্ভেসিং এর জন্য সু-পরিচিত। এছাড়াও দেশে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন মার্কেটে পুরাতন ব্যাটারি ক্রয় বিক্রয় করা হয়।


আশা করি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। আমাদের এই পোস্টে পুরাতন ব্যাটারির দাম, পুরাতন ল্যাপটপের ব্যাটারির দাম, পুরাতন আটো গাড়ির ব্যাটারির দাম, পুরাতন ব্যাটারি কোথায় ক্রয় বিক্রয় করা হয় এছাড়াও পুরাতন ব্যাটারি সম্পর্কে আরো অনেক কিছু দেওয়া হয়েছে। আশা আমাদের এই পোস্ট থেকে আপনারা পুরাতন ব্যাটারির দাম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। পুড়ো পোস্টটি ধৈর্য ধরে সম্পূর্ণ পড়ার জন্য ধন্যবাদ। 

একই ধরনের পোস্ট

×