ইউরিয়া সারের দাম কত

ইউরিয়া সারের দাম কত ২০২৪

Last Updated:1 month ago

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা ইউরিয়া সারের দাম সম্পর্কে আলোচনা করবো। আশা করি আপনারা আমাদের সাথেই থাকবেন। ইউরিয়া সার একটি খুবি গুরুত্বপূর্ণ একটি রসায়নিক সার যা বাংলাদেশে কৃষি উৎপাদনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ইউরিয়া সারে নাইট্রোজেন থাকে যা অনেক ভালো ফসল ফলাতে সাহায্য করে। ইউরিয়া সার অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। প্রায় সবাই কৃষি জমিতে ইউরিয়া সার ব্যবহার করে থাকে। অনেকেই এই ইউরিয়া সারের দাম সম্পর্কে জানতে চায়। তাই আজকে আমরা আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দিবো ইউরিয়া সারের দাম কত

ইউরিয়া সারের দাম কত

বর্তমানে আগের তুলনায় ইউরিয়া সারের দাম কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। ইউরিয়া সারের দাম বৃদ্ধির প্রধান কারণ হল আন্তর্জাতিক বাজারে সারের দাম বৃদ্ধি। বর্তমানে প্রতি কেজি ইউরিয়া সারের দাম ২২ থেকে ২৭ টাকা।


ইউরিয়া সারের কেজি কত

বাংলাদেশে প্রতি বছর কৃষি জমিতে প্রচুর পরিমাণে ইউরিয়া সার ব্যবহার হয়ে থাকে। বাংলাদেশের প্রায় সকলেই কৃষি জমিতে ইউরিয়া সার ব্যবহার করে থাকে। বাংলাদেশে যে কোন প্রকার চাষাবাদ করতে গেলে ইউরিয়া সারের অনেক বেশি প্রয়োজন। বাংলাদেশে প্রতিবছর ২৬ লাখ টন ইউরিয়া চাষাবাদের জন্য কৃষি জমিতে ব্যবহার হয়। তবে বর্তমানে সব কিছুর দাম বাড়ার সাথে বেড়েছে ইউরিয়া সারের দাম। বর্তমানে প্রতি কেজি ইউরিয়া সারের দাম ২২ থেকে ২৭ টাকা। আগে এর দাম ছিলো ১৮ থেকে ২০ টাকা। এবং আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি কেজি ইউরিইয়া সারের দাম ৭৫ থেকে ৮১ টাকা। বর্তমানে সরকারকে প্রতিকেজিতে ৫৯ টাকা ভর্তুকি প্রদান করতে হবে।


ইউরিয়া সারের বস্তা কত

আগের তুলনায় বর্তমানে কৃষি জমিতে ইউরিয়া সারের প্রয়োক দিন দিন বাড়ছে। সেই সাথে বাড়ছে ইউরিয়া সারের দাম। ইউরিয়া সারের দাম বৃদ্ধির কারণ হলো চীন সারের একটি বড় আমদানিকারক দেশ। গত সালে চীনের আমদানি বৃদ্ধির কারণে সারের চাহিদা বেড়েছে এবং দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেকেই বর্তমানে ইউরিয়া সারের সঠিক দাম জানে না। এবং ইন্টারনেটে এর সঠিক দাম খুজে থাকে। তাই আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জানিয়ে দিবো ইউরিয়া সারের প্রতি বস্তা কত টাকা।

ইউরিয়া সারের দাম বৃদ্ধি কৃষকদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ। বর্তমানে প্রতি বস্তা ইউরিয়া সারের দাম ১২০০ থেকে ১৩০০ টাকা। যার দাম আগে ছিলো ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা। তবে এর দাম কোনো কোনো জায়গায় কিছুটা কম বেশি হতে পারে।


ইউরিয়া সার তৈরির উপাদান

যারা কৃষি কাজ করে থাকে তারা সবাই ইউরিয়া সারের সাথে পরিচিত। কারণ বাংলাদেশে যেকোনো ফসলের জমিতে ইউরিয়া সার ব্যবহার করা হয়। সবাই ইউরিয়া সার ব্যবহার করে থাকে কিন্ত বেশিরভাগ মানুষ জানে না যে ইউরিয়া সার তৈরি করা হয় কিভাবে কিংবা ইউরিয়া সার তৈরির উপাদান কি। তাই আজকে আমরা আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো ইউরিয়া সার তৈরির উপাদান।

ইউরিয়া সার তৈরির উপাদানঃ ইউরিয়া সার তৈরির উপাদান হলো নাইট্রোজেন মিথ্যান গ্যাস। নাইট্রোজেন মিথ্যান গ্যাস গাছের জন্য অনেক উপকারি। গাছের বিভিন্ন ধরণের পুষ্টির অভাব পূরণ করে থাকে নাইট্রোজেন মিথ্যান গ্যাস। নাইট্রোজেন মিথ্যান গ্যাস ব্যবহারের ফলে গাছ পুড়োপুড়ি নষ্ট হয়ে যায় না এবং এটি গাছের গোড়া শক্ত করে। এছাড়া ইউরিয়া সারে ফসফেট এর পরিমাণ বেশি দেওয়া হয়। ইউরিয়া সারে ফসফেট থাকে ৫৪ পারছেন্ট এবং নাইট্রোজেন মিথ্যান গ্যাসের পরিমাণ থাকে ৪৬ পারছেন্ট। এছাড়াও আরো উপাদান সমূহ দেওয়া হয়।


ইউরিয়া সারের কাজ কি

বাংলাদেশে যেকোনো ফসল ফলাতে ইউরিয়া সার ব্যবহার করা হয়। ইউরিয়া সার বাংলাদেশের কৃষকদের কাছে অনেক পরিচিত একটি। ইউরিয়া সার ভালো ফসল উৎপাদনে অনেক কার্যকরী একটি সার। অনেকেই ইউরিয়া সার ব্যবহার করে থাকে কিন্ত বেশির ভাগ মানুষ জানে না যে ইউরিয়া সার কি কাজ করে। চলুন জেনে নেওয়া যাক ইউরিয়া সারের কাজ কি।

ইউরিয়া একটি নাইট্রোজেন সংবলিত রাসায়নিক সার, যা ব্যাপক হারে ফসলের জমিতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। ইউরিয়া সারে নাইট্রোজেনের পরিমাণ থাকে ৪৬% এবং ফসফেটের পরিমাণ থাকে ৫৪%। ইউরিয়া সার নাইট্রোজেন সরবরাহ করে থাকে যা শিকড়ের বৃদ্ধি বিস্তাররে সহায়তা করে থাকে। গাছের ও শাকসবজির পর্যাপ্ত পরিমাণ পাতা, ডালপালা ও কান্ড উৎপাদনে সাহায্য করে থাকে। ইউরিয়া সার ক্লোরোফিল উৎপাদনের মাধ্যমে গাছপালাকে গাঢ় সবুজ বর্ণ প্রদান করে থাকে। কুশি উৎপাদনসহ ফলের আকার বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। উদ্ভিদের শর্করা ও প্রোটিন উৎপাদনে সহায়তা করে থাকে। এছাড়াও গাছের অন্যান্য সব আবশ্যক উপাদানের পরিশোষণের হার বাড়িয়ে থাকে।


ইউরিয়া সার দেওয়ার নিয়ম

ইউরিয়া সার প্রায় সকল কৃষরাই ব্যবহার করে থাকে। বাংলাদেশে ইউরিয়া সারের দাম যেমন এর ব্যবহার এবং চাহিদাও ঠিক তেমন। তবে অনেকর মনে একটা প্রশ্ন যে ইউরিয়া সার কিভাবে দিতে হয়। তাই আজকে আমরা আপনাদের জানাবো ইউরিয়া সার দেওয়ার নিয়ম।

ইউরিয়া ব্যবহারের পূর্বশর্ত হচ্ছে লাইনে চারা রোপণ। চারা রোপণের ৭ দিনের মধ্যে মাটি শক্ত হওয়ার আগে জমিতে ২-৩ সেমি. পানি থাকা অবস্থায় ইউরিয়া সার মাটির ৩-৪ ইঞ্চি নিচে প্রয়োগ করতে হয়। জমিতে ২০×২০ সেমি. (৮×৮ ) দূরত্বে লাইন থেকে লাইন এবং চারা থেকে চারার দূরত্বে ধানের চারা বোপণ করতে হবে।  এরপর প্রতি চার গোছার মাঝখানে ইউরিয়া সার প্রয়োগ করতে হবে। ইউরিয়া হাতেও প্রয়োগ করা যায়। তাছাড়া বারি ও আইএফডিসি উদ্ভাবিত প্রয়োগ যন্ত্র দিয়েও প্রয়োগ করা যায়। এছাড়া আরো নানান ভাবে ইউরিয়া সার ব্যবহার করা যায়।


আশা করি আমাদের আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা অনেক উপকৃত হয়েছেন। আমাদের এই আজকের এই আর্টিকেলে ইউরিয়া সারের দাম, ইউরিয়া সার তৈরির উপাদান, ইউরিয়া সারের কাজ, ইউরিয়া সার দেওয়ার নিয়ম জানতে পেরেছেন। আমাদের এই পোস্টটিতে ইউরিয়া সার সম্পর্কে বিস্তারিত সব কিছু দেওয়া আছে। আশা করি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। পুড়ো পোস্টটি ধৈর্য ধরে সম্পূর্ণ পড়ার জন্য ধন্যবাদ। 

একই ধরনের পোস্ট

×