অশ্বগন্ধার দাম কত

অশ্বগন্ধার দাম কত ২০২৪

Last Updated:4 months ago

আসসালামু আলাইকুম।আশা করি সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা অশ্বগন্ধার দাম সম্পর্কে আলোচনা করবো। আজেক আমাদের এই পোস্ট থেকে আপনারা অশ্বগন্ধার দাম সম্পর্কে জানতে পারবেন। অশ্বগন্ধা হলো একটি প্রাচীন ওষধি ভেষজ। অশ্বগন্ধার বিভিন্ন সাস্থ্য উপকারিতার জন্য এটি প্রাচীন কাল থেকে মানুষ ব্যবহার করে আসছে। অশ্বগন্ধার বেশিরভাগ মানুষের পক্ষে নিরাপদ এবং ব্যাপকভাবে উপলব্ধঅশ্বগন্ধা (Ashwagandha)অস্বগন্ধা আমাদের স্বাস্থের জন্য খুবই উপকারি একটি ঔষধি গাছ। অশ্বগন্ধা ছোট এক ধরনের গুল্ম, যাতে হলুদ রঙের ফুল হয়। বাজারে বেশির ভাগ অশ্বগন্ধার গুড়া পাওয়া যায়। অনেকেই জানতে চায় অশ্বগন্ধার দাম কত। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধার দাম কত

অশ্বগন্ধার দাম কত

বর্তমান বাজারে ১০০ গ্রাম অশ্বগন্ধার দাম ১৪০ থেকে প্রায় ২০০ টাকা। এছাড়া ৫০০ গ্রাম অশ্বগন্ধার দাম ৭০০ থেকে প্রায় ১০০০ টাকা। এবং ১ কেজি অশ্বগন্ধার দাম ১৪০০ থেকে ২০০০ টাকা। তবে এর দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে।

অশ্বগন্ধা (Ashwagandha) এর বিজ্ঞানসম্মত নাম হল Withania somnifera। এটি পাওয়া যায় ভারত, পাকিস্তান, স্পেন, আফ্রিকা, মধ্য প্রাচ্য এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলিতে। প্রাচীনকাল থেকেই এই গাছের পাতা, ফল, বীজ ও শিকড় আয়ুর্বেদিক ঔষুধ তৈরী করার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।এখনও পর্যন্ত অশ্বগন্ধার নির্যাসে ৩৫ ধরণের ফাইটোকেমিক্যাল উপাদান আছে বলে জানা গেছে। অশ্বগন্ধায় আছে অ্যালকালয়েড, স্ট্রেরয়ডাল ল্যাক্টনস, ট্যানিনস, স্যাপোনিনস এই সব উপাদান যা ক্যান্সার, স্ট্রেস, বার্ধক্যজনিত প্রভাব, যৌনক্ষমতা সংক্রান্ত ও প্রদাহ জনিত সমস্যার বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে। এছাড়া উইথানন, উইথাফেরিন এ, ডি, ই , উইথাননোলাইড হল কিছু বায়োঅ্যাক্টিভ পর্দাথ যা অশ্বগন্ধায় থাকে। এর অনেক উপকারিতা থাকায় বর্তমানে এর চাহিদা অনেক।


অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল এর দাম কত

অশ্বগন্ধা অনেক উপকারি একটি ঔষধি গাছ। এই গাছ থেকে বিভিন্ন ধরণের ক্যাপসুল বানানো হয়। বর্তমান বাজারে অশ্বগন্ধার ক্যাপসুল ৩৫০ থেকে ৫৫০ টাকার মধ্যে পাওয়া যায়। এর দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে। তবে আগের তুলনায় বর্তমানে এর দাম একটি বেশি।

অশ্বগন্ধা শরীরের জন্য অনেক উপকারি। অশ্বগন্ধার গুড়া ত্বক ও চুলের যত্নে ব্যবহার করা যায়।তাই যেনে নেয়া যাক অশ্বগন্ধা গুড়ার উপকারিতা ও ব্যবহার বিধি।ত্বকের যত্নে অশ্বগন্ধাউপকারিতা* ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করে* ব্রন কমাতে* দাগ দূর করতে সাহা্য্য করে। অশ্বগন্ধায় অনেক গুন রয়েছে। অশ্বগন্ধার সব ধরণের গুণের কারণ হল এতে উপস্থিত একধরনের ফাইটোকেমিক্যাল উপাদান। গবেষণায় জানা গেছে সঠিক পরিমাণে অশ্বগন্ধা ক্যান্সারের ক্ষেত্রেও কার্যকরী।


অশ্বগন্ধা পাউডার এর দাম কত

সাধারণত বাজারে পাউডার এবং ক্যাপসুল এই দুই ধরণের অশ্বগন্ধা পাওয়া যায়। তবে অশ্বগন্ধার পাউডার সবাই বেশি ক্রয় করে থাকে। অনেকেই জানতে চায় অশ্বগন্ধার পাউডার এর দাম কত। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধার পাউডার এর দাম কত। বর্তমান বাজারে ১০০ গ্রাম অশ্বগন্ধার পাউডার এর দাম ১৫০ থেকে ২০০ টাকা। এছাড়া ৫০০ গ্রাম পাউডারের দাম ৭৫০ থেকে ১০০০ টাকা।প্রতি কেজি অশ্বগন্ধা পাউডারের দাম ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা। এবং ১০ কেজি অশ্বগন্ধা পাউডারের দাম ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা।

অশ্বগন্ধা পাউডারে রয়েছে অনেক উপকারি উপাদান যা শরীরের পক্ষে অনেক উপকারি। অশ্বগন্ধা পাউডার মানুষের দেহের রক্ত চলাচল নিয়ন্ত্রণে বেশ কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে। অশ্বগন্ধা পাউডার দেহের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রেখে হৃদপিণ্ডকে রোগ থেকে রক্ষা করে। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রমতে অশ্বগন্ধা পাউডার মানুষের কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে থাকে এবং পেশির শক্তি বৃদ্ধি করে। আর্থাইটিসে ব্যথায় অশ্বগন্ধার গুড়া খুবই উপকারী ভূমিকা পালন করে বলে শাস্ত্রে উল্লেখ রয়েছে। এছাড়াও আপনি যদি অনিদ্রা ও মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ করতে হলেন অবশ্যই অশ্বগন্ধা পাউডার খেতে পারেন। ক্যান্সার প্রতিরোধে ডায়াবেটিস সমস্যায় যৌন ক্ষমতা বাড়াতে থাইরয়েডের সমস্যায় অশ্বগন্ধা পাউডার বেশ কাজ করে থাকে।


অশ্বগন্ধা সিরাপ দাম

অনেকেই জানতে চায় অশ্বগন্ধার সিরাপ এর দাম কত। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধা সিরাপ দাম। বর্তমান বাজারে ১০০ মিলির ১ বোতল অশ্বগন্ধা সিরাপের দাম ৮০ থেকে ১০০ টাকা। এছাড়া ৫০০ মিলি অশ্বগন্ধা সিরাপের দাম ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা এবং ১০০০ মিলি অশ্বগন্ধা সিরাপের দাম ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা। তবে এর দাম স্থান ভেদে কম বেশি হয়ে থাকে।

সাধারণত বেশির ভাগ অশ্বগন্ধা বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়। তাই আমদানির হার হিসেবে এর দাম নির্ধারণ করা হয়। অনেক উপকারি উপাদান দিয়ে অশ্বগন্ধা সিরাপ বানানো হয়।অশ্বগন্ধা সিরাপ শরীরের অনেক উপকার করে। শারীরিক দুর্বলতার পাশাপাশি আপনি এই ঔষধটি সেবন করলে মানসিকভাবে অনেকটা ভালো থাকতে পারবেন বলেও মনে করা হয়ে থাকে। কারণ গবেষনায় জানা গিয়েছে অশ্বগন্ধার সিরাপের গুণাগুণ এর মধ্যে মানসিকভাবে সুস্থ রাখার জন্য অশ্বগন্ধা টি কাজ করে থাকে এছাড়াও এ সকলের পাশাপাশি যদি আপনি দীর্ঘদিন ধরে অনিদ্রায় ভোগেন তাহলেও আপনি এই ঔষধটি সেবন করতে পারেন। এছাড়াও আরো অনেক উপকার রয়েছে অশ্বগন্ধা সিরাপে।

 

পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল এর দাম কত

অনেকেই জানতে চায় পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল এর দাম কত। আজকে আমরা জানিয়ে দিবো পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল এর দাম কত। বর্তমান বাজারে পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাসুল প্রতি প্যাক এর দাম ১০০ টাকা, এছাড়া ৩ প্যাক এর দাম ৩০০ টাকা, পতঞ্জলি ক্যাপসুল ১০ প্যাক এর দাম ১০০০ টাকা। তবে এর দাম একেক জায়গায় একেক রকম হতে পারে।

ত্বকের জন্য উপকারী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের সমৃদ্ধ উৎস হওয়ার দরুণ পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল একটি প্রকৃত বার্ধক্য প্রতিরোধী ভেষজ। বয়ঃবৃদ্ধির প্রাথমিক উপসর্গ রোধ করে এবং শুষ্ক ত্বক এবং কেরাটোসিস-এর বিরুদ্ধে শরীর রক্ষা করে। এছাড়াও পতঞ্জলি অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল শরীরের নানাভিদ রোগ প্রতিরোদ ক্ষমাতা বাড়াতে সাহায্য করে।


অশ্বগন্ধা কিভাবে খাবেন

অশ্বগন্দাতে রয়েছে নানান উপকার। শরীরের রোগ দূর করা থেকে শুরু শরীর সাস্থ্য ভালো রাখতে অশ্বগন্ধা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অনেকেই অশ্বগন্ধা খেয়ে থাকে কিন্ত অনেকেই অশ্বগন্ধা খাওয়ার সঠিক নিয়ম জানে না। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধা কিভাবে খাবেন।
এক আউন্স অশ্বগন্ধার গুঁড়ো হালকা করে ঘিয়ে ভেজে খেজুরের চিনি মিশিয়ে জলখাবারের ২০ মিনিট আগে খেতে পারেন। অশ্বগন্ধার গুঁড়ো ঘি বা মধুতে মিশিয়ে দুধ দিয়েও খাওয়া যায়। অশ্বগন্ধা, কলা ও দুধ মিশিয়ে স্মুদি বানিয়ে খেতে পারেন। তবে খাওয়ার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে নেবেন। এছাড়াও আপনি যদি অশ্বগন্ধা ট্যাবলেট খেতে চান তাহলে, সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রতি রাতে একটি করে ট্যাবলেট খেতে হবে। এতে আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত সমস্যায় উপকার পাবেন।
আপনি যদি অশ্বগন্ধা পাউডার হিসেবে খেতে চান তাহলে, প্রতি রাতে এক ক্লাস গরম দুধের সাথে আপনি তিন থেকে ৪ চামচ অশ্বগন্ধা পাউডার মিশিয়ে ভালো করে নেড়ে খাবেন। আপনি চাইলে এই মিশ্রণটির সাথে চিনি কিংবা মধু মিশিয়েও খেয়ে নিতে পারেন। এভাবে আপনি আপনার বিদ্যমান সমস্যার সমাধান পাবেন।
এছাড়াও, আপনি যদি অশ্বগন্ধাকে মূল খেতে চান সেক্ষেত্রে মূলত ভালোভাবে পরিষ্কার করে তা সিদ্ধ করে নিতে হবে। সিদ্ধ করা পানি আপনাকে ফুটানো হলে ছেঁকে নিতে হবে। পানি ছেকে নিলে আপনি সেই পানিটুকু খেয়ে নিবেন তাহলে আপনি আপনার সমস্যাটির খুব দ্রুত আকারে সমাধান পেয়ে যাবেন।

অশ্বগন্ধার উপকারিতা ও অপকারিতা

প্রাচীন আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় ব্যবহৃত অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আয়ুর্বেদ ভেষজ হচ্ছে অশ্বগন্ধা। সাস্থ্য সুরক্ষায় অশ্বগন্ধার উপকারিতা অপরিসীম। অশ্বগন্ধার যেমন উপকারিতা রয়েছে তেমন অপকারিতাও রয়েছে। অনেকেই অশ্বগন্ধার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানতে চায়। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধার উপকারিতা ও অপকারিতা।

উপকারিতাঃ

1. চুল পেকে যাওয়ার সমস্যার জন্য অশ্বগন্ধা
অশ্বগন্ধা ( Ashwagandha Benefits in Bengali ) আমাদের চুল পেকে যাওয়া বা চুল পরে যাওয়া জন্য উপকার করে থাকে। এক গবেষণার রিপোর্ট থেকে জানা যায় যে বংশ গত কারণে বা থাইরয়েডের কারণে যাদের চুল পড়তে থাকে তাদের জন্য অশ্বগন্ধা খুবই উপকারী। অশ্বগন্ধা চুলের মেলানিন বাড়াতে সাহায্য করে। যার জন্য চুল পড়া অনেক কমে যায়। এর জন্য ২-৪ গ্রাম অশ্বগন্ধা চূর্ণ দুধ বা জলের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে হবে।
2.‍ ‍‌‍‌‍ ‍চোখের  সমস্যার জন্য অশ্বগন্ধা
আজকাল চোখের সমস্যা মানুষের মধ্যে অতিরিক্ত হারে বেড়ে চলেছে। তার মেইন কারণ হলো অতিরিক্ত ফোন ও কম্পিউটার ব্যাবহার করা। যার কারণে অনেকের চোখে ছানি পরে যায়, আবার অনেক মানুষের এই ছানি পরে যাওয়ার জন্য অন্ধ পর্যন্ত হয়ে যায়। কিছু বৈজ্ঞানিক চোখের সমস্যার জন্য এই অশ্বগন্ধার (Ashwagandha Benefits in Bengali) উপকারিতা ওপর পরিচর্চা করে দেখে যে এটি চোখের সমস্যার জন্য অনেকটা লাভকারী ।
এর মধ্যে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট গুন পাওয়া যায় । যেটা চোখের ছানি পড়া থেকে রোধ করে থাকে। রিসার্চ সূত্রে এটাও জানা যায় যে ২ গ্রাম অশ্বগন্ধা, ২ গ্রাম আমলকী ও ১ গ্রাম যষ্টিমধু একসঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে প্রতিদিন সকালে ও রাতে খাবার পরে খেতে হবে। তাহলে চোখের যেকোনো সমস্যা থেকে অনেকটা আরাম পাওয়া যায়।
3. গলগন্ড রোগের জন্য অশ্বগন্ধা
গলগন্ড হলো এমন একটি রোগ যেটাতে গলা ফুলে যায় । এটি সাধারণত শরীরে আয়োডিনের অভাবে হয়ে থাকে। আয়োডিনের অভাবে থাইরয়েড গ্রন্থি ফুলে যায়। যেসব জায়গায় জলেতে আয়োডিন থাকেনা সাধারণত সেখানকার লোকেদের এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। গবেষণায় জানা যায় যে এই গলগন্ড রোগের জন্য আশ্বগন্ধা ( Ashwagandha Benefits in Bengali ) খুব উপকারী।
এই সমস্যার জন্য অশ্বগন্ধা পাউডার ও পুরনো গুর সঠিক মাত্রায় মিশিয়ে নিন, তারপর ১-২ গ্রাম মাত্রায় গোল গোল বড়ি বানিয়ে রাখুন। এটি প্রতিদিন সকালে বাসী পেটে ১ ত বড়ি খেয়ে নিন। এরপর অশ্বগন্ধার পাতা ভালো করে বেটে নিন এবং গলার ফোলা জায়গায় লাগিয়ে নিন । দেখবেন কিছুদিনের মধ্যে ভালো ফল পাওয়া যায় ।
4. T B রোগের জন্য অশ্বগন্ধা
যক্ষ্মা বা T.B এটা একটি খুবই খারাপ রোগ, এই রোগটা সাধারণত আমাদের ফুসফুসে আক্রান্ত করে থাকে।
5. কাশির জন্য অশ্বগন্ধা
যাদের গলা খুসখুস করে বা কাশির সঙ্গে কফ বের হয় তারা এই অশ্বগন্ধা (Ashwagandha Benefits in Bengali) পাউডার 10 গ্রাম, 10 গ্রাম মিশ্রি ও 400ml জলের সঙ্গে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। তারপর এটি ৮ ভাগের ১ ভাগ হয়ে যাবে তখন এটা নামিয়ে নেবেন। ঠাণ্ডা করে এটি খেয়ে নেবেন। দেখবেন অনেকটা আরাম হয়েছে।
6. বুকে ব্যাথার জন্য অশ্বগন্ধা
বুকে ব্যাথার অনেক কারণ থাকতে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে গ্যাসের সমস্যা থাকলে এই ব্যাথা হতে পারে। কোলেস্টরল বেশি থাকলেও বুকে ব্যাথা হয়। হার্টের কোনো সমস্যা থাকলেও এই ব্যাথা হতে পারে। যদি হালকা ব্যাথা হয় তাহলে ২গ্রাম অশ্বগন্ধা ( Ashwagandha Benefits in Bengali ) পাউডার জলের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে পারেন। যদি ব্যাথা না কম হয় বা বেশি হয় তাহলে ডক্টর এর সঙ্গে পরামর্শ নেওয়া ভালো।
7. পেটের সমস্যার জন্য অশ্বগন্ধা
আজকাল কার যুগে দৈনন্দিন চর্চা ও অনিয়মিত খানপানের জন্য পেটে ব্যাথা খুবই সাধারণ ব্যাপার । অতিরিক্ত জাঙ্ক ফুড, মশলাদার খাবার খাওয়া ও অনিয়মিত খাবার খাওয়ার জন্য পেটে ব্যাথা হয় অনেক সময়। তাছাড়া পেটে কৃমি হলেও পেটে ব্যাথা হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে ২-৪ গ্রাম অশ্বগন্ধা (Ashwagandha Benefits in Bengali) চূর্ণ, ২-৪ গ্রাম গিলয় চূর্ণ ও ৫-১০ গ্রাম মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খেতে পারেন।
8. ইন্দ্রিয় ও যৌনরোগের সমস্যার জন্য অশ্বগন্ধা
শরীর দুর্বলতা ও অতিরিক্ত চিন্তার কারণে পুরুষের যৌন ক্ষমতা কমে যায়। এ ছাড়াও টেস্টোস্টেরন হরমোনের অভাবে যৌন ক্ষমতা কমে যায়। এর জন্য বৈবাহিক জীবনে খুব সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। এই অবস্থায় অশ্বগন্ধা ( Ashwagandha Benefits in Bengali ) খেলে খুব উপকার হয়। কেননা অশ্বগন্ধার উপকারিতা প্রাচীনকাল থেকেই একটি শক্তিবর্ধক ঔষধ হিসেবে ব্যাবহার হয়ে আসছে।
তাছাড়া এটি খেলে শরীরের দুর্বলতা ঠিক হয় এবং মানসিক চিন্তাও দুর করে। ফলে যৌন ক্ষমতা ঠিক করতে সাহায্য করে থাকে। প্রতিদিন ২-৪ গ্রাম অশ্বগন্ধা পাউডার এক গ্লাস হালকা গরম দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে ভালো ফল পাওয়া যায়। এ ছাড়াও অশ্বগন্ধা পাউডার তাড়াতাড়ি বীর্য বেরিয়ে যাওয়া, স্পার্ম কাউন্ট কমে যাওয়ার জন্য খুবই উপকারী।

অপকারিতাঃ
গর্ভবতী মহিলাদের জন্য ঝুঁকি: গর্ভবতী মহিলাদের অশ্বগন্ধা সেবন এড়াতে পরামর্শ দেওয়া হয় কারণ এতে গর্ভনিরোধক বৈশিষ্ট্য রয়েছে।
মেডিকেল ইন্টারঅ্যাকশনের ঝুঁকি: আপনি যদি কোনো রোগের ওষুধ হিসেবে সেবন করেন তবে আপনার ডাক্তার আপনাকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিতে পারেন কারণ এটি নিয়মিত ওষুধের সাথে ক্ষতিকারক হতে পারে, বিশেষ করে যাদের ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, উদ্বেগ বা বিষণ্নতা রোগের মতো রোগে ভুগছেন তাদের জন্য বিষণ্নতা এবং অনিদ্রা হতে পারে।
অন্যান্য: খুব বেশি পরিমাণে অশ্বগন্ধা খাওয়া এড়িয়ে চলুন, কারণ এটি ডায়রিয়া, পেট খারাপ এবং বমি বমি ভাবের মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।

অশ্বগন্ধার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

অশ্বগন্ধার অনেক উপকার রয়েছে। প্রত্যেক জিনিসএর যেমন উপকার থাকে তেমন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। অশ্বগন্ধারও কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। অনেকেই জানতে চায় অশ্বগন্ধার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি কি। চলুন জেনে নেই অশ্বগন্ধার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াঃ
অশ্বগন্ধা একটি শক্তিশালী ভেষজ এবং এর অতিরিক্ত মাত্রায় সেবন কিছু গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জন্ম দেয়। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক দ্বারা নির্ধারিত পরিমাণে বা প্যাকেজে উল্লিখিত পরিমাণে অশ্বগন্ধা গ্রহণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়। প্রস্তাবিত পরিমাণের চেয়ে বেশি গ্রহণ করলে পেট খারাপ, ডায়রিয়া বা বমি হতে পারে। তাছাড়া অশ্বগন্ধা দীর্ঘ সময় ধরে সেবন করলে লিভারের সমস্যা হতে পারে। এছাড়াও আরো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে তাই অশ্বগন্ধা নিয়ম মেনে খাওয়া উচিত।

আশা করি আপনারা আমাদের এই পোস্ট থেকে অশ্বগন্ধার দাম, অশ্বগন্ধা ক্যাপসুল এর দাম, অশ্বগন্ধা পাউডার এর দাম, অশ্বগন্ধা খাওয়ার নিয়ম এবং আরো অনেক কিছু বিস্তারিত জানতে পেড়েছেন। আমাদের এই পোস্টে অশ্বগন্ধা সম্পর্কে বিস্তারিত দেওয়া আছে। আশা করি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। পুড়ো পোস্টটি ধৈর্য ধরে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

একই ধরনের পোস্ট

×