দই এর দাম কত

দই এর দাম কত ২০২৪

Last Updated:3 months ago

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা দই এর দাম সম্পর্কে আলোচনা করবো। দই হল এমন একটি মিষ্টি খাদ্য যা আমরা অনেকে খেতে খুব পছন্দ করে থাকি। দই অনেক সুস্বাদু একটি খাবার যা প্রায় অধিকাংশ মানুষ পছন্দ করে থাকে। দই পছন্দ করে না এমন বাঙালি খুব কম পাওয়া যাবে। দই কম বেশি সকলেই পছন্দ করে। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় সকল জেলাতেই দই তৈরি করা হয়। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দই মিষ্টান্ন হিসেবে দেওয়া হয়। বর্তমানে বাংলাদেশে দই এর অনেক চাহিদা। অনেকেই জানতে চায় দই এর দাম আজকে আমরা জানিয়ে দিবো দই এর দাম কত

দই এর দাম কত

সাধারণত বর্তমানে টক দই এবং মিষ্টি দই এই দুই ধরণের দই এর চাহিদা বেশি। বর্তমান বাজারে প্রতি কেজি টক দই এর দাম ২২০ থেকে ২৫০ টাকা এবং প্রতি কেজি মিষ্টি দইয়ের দাম ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা। তবে আগে এর দাম অনেকটা কম ছিলো। বর্তমান দই বানানোর সব উপকরণের দাম বাড়ার কারণে দই এর দামও কিছুটা বেড়েছে। তবে এর দাম কিছুটা কম বেশি হতে পারে।

 

টক দই এর দাম কত

টক দই আমরা অনেকেই টক দই খেয়ে থাকি। টক দই বিভিন্ন রান্নার কাজেও ব্যবহার করা হয়। টক দই এর অনেক পুষ্টিগুন উপাদান রয়েছে যা আমাদের শরীরের অনেক উপকার করে। টক এমনি খাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন রান্নার কাজেও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বর্তমানে এর চাহিদা অনেক। অনেকেই টক দই এর দাম সম্পর্কে জানতে চায়। চলুন জেনে নেই টক দই এর দাম কত।

বর্তমানে বাজারে টক দই প্রতি কেজির দাম ২২০ থেকে ২৫০ টাকা। এছাড়া ৫ কেজি টক দই এর দাম ১১০০ থেকে ১২৫০ টাকা। এছাড়াও বাজারে বিখ্যাত মহিষের দুধ এর টক দই পাওয়া যায়। মহিষের দুধের প্রতি কেজি টক দই এর দাম ২৬০ থেকে ২৮৫ টাকা। এবং মহিষের দুধের টক দই ৫ কেজির দাম ১৩০০ থেকে ১৪০০ টাকা। তবে এর দাম বর্তমানে কম বেশি হতে পারে।


আড়ং টক দই দাম কত

আড়ং অনেক ভালো মানের টক দই তৈরি করে থাকে। আড়ং টক দই সারা বাংলাদেশে অনেক জনপ্রিয়। অনেকেই জানতে চায় আড়ং টক দই এর দাম কত। চলুন জেনে নেই আড়ং টক দই এর দাম। বর্তমান বাজারে ৫০০ গ্রাম আড়ং টক দই এর দাম ৮০ থেকে ১০০ টাকা। এছাড়া প্রতি কেজি আড়ং টক দই এর দাম ১৬০ থেকে ২০০ টাকা। ২ কেজি আড়ং টক দই এর দাম ৩২০ থেকে ৪০০ টাকা। এবং ৫ কেজি আড়ং টক দই এর দাম ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা। তবে আগে এর থেকে কম দামে এই দই পাওয়া যেতো। কিন্ত বর্তমানে সকল দই এর দাম বাড়ার পাশাপাশি আড়ং দই এর দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে এর দাম কিছুটা কম বেশি হতে পারে।


বগুড়ার দই এর দাম কত

বগুড়া বাংলাদেশের একটি জেলা এবং এটি দইয়ের জন্য বিখ্যাত। জানা যায় বগুড়ার শেরপুরে প্রথম দই তৈরি হয় প্রায় আড়াইশ বছর আগে। তৎকালীন বগুড়ার শেরপুরের ঘোষ পরিবারের ঘেটু ঘোষ প্রথম দই তৈরি আরম্ভ করেন। টক দই তৈরি থেকে বংশ পরম্পরায় তা চিনিপাতা বা মিষ্টি দইয়ে রূপান্তরিত হয়। আর কালের বিবর্তনে স্বাদের বৈচিত্র্যের কারণে দইয়ের বহুমুখী ব্যবহার শুরু হয়। অনেকেই জানতে চায় বগুরার দই এর দাম কত। চলুন জেনে নেই বগুরার দই এর দাম।

বগুরার দই সারা বাংলাদেশে অনেক বিখ্যাত। প্রায় সবাই বগুরার দই পছন্দ করে থাকে। বর্তমান বাজারে বগুরার দই এর দাম

বগুড়ার বিখ্যাত বারকি দই ৳ ৩৫০

বগুড়ার বিখ্যাত কাপ দই ৳ ৩০

বগুড়ার বিখ্যাত সড়া দই ৳ ৩২০

শাহী দই, স্পেশাল দই এবং খাঁটি ঘি ৳ ৪০০

নাম করা বগুড়ার দই ৳ ২৫০

বগুড়ার দই ৳ ২৫০

তবে এর দাম কিছুটা কম বেশি হতে পারে।


প্রাণ টক দই দাম কত

টক দই অন্য সাধারণভাবে ব্যবহৃত এবং জনপ্রিয় ধরণের দই। এতে কোনও মিষ্টি থাকে না যার কারণে এটি টক লাগে। এই দই মূলত রান্না, পানীয় তৈরিতে বা ত্বক বা চুলের যত্ন হিসাবে ব্যবহৃত হয়। তবে টক দই এর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় দই হলো প্রাণ টক দই যা আমাদের বাংলাদেশে প্রায় সব জায়গায় অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। অনেকেই জানতে চায় প্রান টক দই এর দাম কত। চলুন জেনে নেই প্রাণ টক দই এর দাম।

বর্তমান বাজারে ৫০০ গ্রাম প্রাণ টক দই এর দাম হলো ১০০ থেকে ১২০ টাকা। এছাড়া ১০০ গ্রাম ছোট কাপ প্রান দই পাওয়া যায় যার দাম হলো ২০ থেকে ৩০ টাকা। বর্তমানে ১ কেজি প্রান দই এর দাম ২০০ থেকে ২৪০ টাকা। তবে এর দাম বর্তমানে কম বেশি হতে পারে।

 

দই মেকার দাম কত

দই খেতে কে না পছন্দ করে থাকেন! তবে দই খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমন দই বানাতেও দরকার হয় আশানুরূপ শ্রম। অনেকক্ষেত্রে আবার পোহাতে হয় তীব্র ঝক্কি-ঝামেলা অথবা ভোগান্তি। তবে বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক আধুনিক দই মেকার রয়েছে যা দিয়ে সহজেই দই বানানো যায়। অনেকেই জানতে চায় দই মেকারের দাম কত।চলুন জেনে নেই দই মেকার দাম।

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক ধরণের দই মেকার পাওয়া যায়। একেক ধরণের দই মেকারের দাম একেক রকম নিচে বিভিন্ন দই মেকারের দাম দেওয়া হলো।

অটোমেটিক দই মেকার (মাল্টি) ৭৫০ টাকা।

ইলেকট্রিক দই মেকার ৭৯৮ টাকা।

স্বয়ংক্রিয় দই মেকার ১৫৫০ টাকা।

স্বয়ংক্রিয় দই দই মেকার ৯০০ টাকা।

অটোমেটিক দই মেকার ৮০০ টাকা।

অটোমেটিক দই মেকার-বৈদ্যুতিক দই মেকার ৬৬০ টাকা।

অটোমেটিক দই মেকার ৮২০ টাকা।

তবে এর দাম বর্তমান বাজারে কম বেশি হতে পারে।


মিষ্টি দই এর দাম কত

দই বাংলাদেশের অন্যতম বিখ্যাত খাবার, কেননা এগুলি সমস্ত বয়সের লোকেরা পছন্দ করে। মূলত, দই একটি দুগ্ধজাত পণ্য যা কার্ডলিং নামে একটি পদ্ধতিতে দুধ জমাট বাঁধার মাদ্ধমে কার্যকর করা হয়। তবে দই এর মধ্যে মিষ্টি দই সব থেকে বেশি বিখ্যাত এবং এর চাহিদা অনেক বেশি। অনেকেই জানতে চায় মিষ্টি দই এর দাম কত। চলুন জেনে নেই মিষ্টি দই এর দাম।

বর্তমান বাজারে ৫০০ গ্রাম মিষ্টি দই এর দাম ১২৫ থেকে ১৭৫ টাকা। প্রতি কেজি মিষ্টি দই এর দাম ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা। এছাড়া বগুড়ার বিখ্যাত মিষ্টী দই ৫০০ গ্রামের দাম ১৭৫ থেকে ২০০ টাকা এবং বগুড়ার বিখ্যাত মিষ্টী দই প্রতি কেজির দাম ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা। তবে এর দাম বর্তমানে কম বেশি হতে পারে।


টক দই খাওয়ার উপকারিতা

পৃথিবীতে বেশ কিছু খাদ্য আছে, যা একই সাথে শত গুণের আধার। তেমনই একটা খাদ্য হচ্ছে ‘টক দই’। এই টক দই আমাদের শরীরের জন্য নানা ধরনের কাজ করে থাকে। নিয়মিত টক দই খেলে তা দেহকে নানাভাবে উপকার করে। অনেকেই জানতে চায় টক দই এর কিকি উপকারিতা রয়েছে। চলুন জেনে নেই টক দই খাওয়ার উপকারিতা।
উপকারিতাঃ
১. টকদই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ আমাদের শরীরে বিদ্যমান খারাপ ব্যাকটেরিয়া কে প্রতিরোধ করতে সক্ষম টকদই এ থাকা উপকারী ব্যাকটেরিয়া সমূহ। এর ফলে শরীরে হঠাৎ কোনো খারাপ ব্যাকটেরিয়া এট্যাক করতে পারেনা। অর্থাৎ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় যা বিভিন্ন ছোট খাটো রোগ মোকাবেলায় সাহায্য করে। এর পাশাপাশি টকদই শ্বেতরক্তকণিকার সংখ্যা বাড়িয়ে দেয় যা জীবাণু সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। গবেষণায় দেখা গেছে দূরে থাকা প্রোবায়োটিক অন্ত্রের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এমনকি খাদ্যনালীতে কোষ উৎপাদনের বড় ভূমিকা পালন করে এই প্রোবায়োটিকস।
২. টকদই হজমে সাহায্য করে। টকদই এ থাকা ভালো ব্যাকটেরিয়া হজম শক্তি বৃদ্ধি করে থাকে। তাই বলা হয় দুপুরে খাওয়ার পর দই খেলে তা হজম প্রক্রিয়া কে ত্বরান্বিত করে।
৩. টক দই এ ফ্যাট না থাকায় টক দই আমাদের খারাপ কোলেস্টেরল কে নিয়ন্ত্রণ করে এবং ভাল কোলেস্টেরল উৎপাদনে সাহায্য করে।
৪. আমরা জানি, দুধে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। কিন্তু টকদই এ দুধের চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন ডি থাকে যা আপনার হাড়ের গঠন এবং হাড় মজবুত করতে অনেক সহায়তা করে। তাই মহিলাদের নিয়ম করে টক দই খাওয়া উচিৎ। কারণ মহিলারাই সবচেয়ে বেশি হাড় জনিত নানা সমস্যায় ভুগেন।
৫. টকদই ওজন কমাতে সাহায্য করেঃ দেহের অতিরিক্ত ওজন আমাদের অনেক সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এই অতিরিক্ত ওজনের জন্য আমাদের শরীরে নানা রোগের উৎপত্তি হয়। কিন্তু টক দই খেলে আপনি খুব সহজেই বাড়তি ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। টক দই শরীরের ফ্যাট বার্ন করে বাড়তি ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও টক দইয়ের নিজেই হজম হতে সবচেয়ে বেশি সময় লাগে। তাই ক্যালোরি সমৃদ্ধ খাবার না খেয়ে টক দই খেলে অধিক সময় পর্যন্ত পেট ভরে থাকে এবং অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ থেকে আপনাকে বিরত রাখবে। এছাড়াও টক দই এর আরো নানান ধরণের উপকার থাকতে পারে।


আশা করি আপনারা আমাদের এই পোস্ট থেকে বিভিন্ন দই এর দাম, মিষ্টী দই এর দাম। টক দই এর দাম, টক দই খাওয়ার উপকারিতা এবং দই সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে পেড়েছেন। আমাদের এই পোস্টে দই সম্পর্কে বিস্তারিত দেওয়া আছে। আশা করি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। পুড়ো পোস্টটি ধৈর্য ধরে সম্পূর্ণ পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

একই ধরনের পোস্ট

×